রবিবার হুয়াওয়ে সুপার ফ্ল্যাগশিপ Mate 30 Pro এর প্রাক বুকিং শুরু হয়েছে বাংলাদেশের বাজারে।

বাংলাদেশে চালু হল হুয়াওয়ে সুপার ফ্ল্যাগশিপ Mate 30 Pro
ছবি: সংগৃহীত

প্রি বুকিং বুধবার অবধি চলবে হুয়াওয়ে অনুমোদিত ব্র্যান্ডের দোকানগুলি, অনলাইন দোকান দারাজ, পিকাবু এবং গ্যাজেট এবং গিয়ারের আউটলেটগুলিতে।

হুয়াওয়ে প্রতিটি প্রি-বুকিংয়ের জন্য উপহার হিসাবে তার প্রিমিয়াম বিভাগের ফ্রিলেস এবং ওয়্যারলেস চার্জারটি দিচ্ছে এবং গ্রামীণফোন গ্রাহকদের জন্য বিনামূল্যে ৮ জিবি ডেটা বান্ডেল অফার থাকবে। ফোনটির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৯৯,৯৯৯ টাকা।

হুয়াওয়ের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি রাজধানীর একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত হয়েছিল যেখানে জিটিএমের বিয়ান্ড জেং, বিউটি ডিরেক্টর, হুয়াওই কনজিউমার বিজনেস গ্রুপ (বাংলাদেশ), জুনিয়র সালাহউদ্দিন সানজি, বিক্রয় পরিচালক, হুয়াওই কনজিউমার বিজনেস গ্রুপ (বাংলাদেশ), মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম, ম্যানেজিং ডিরেক্টর, স্মার্ট টেকনোলজিস (বিডি) লিমিটেড, সুমন সাহা, সিনিয়র জনসংযোগ ব্যবস্থাপক, হুয়াওয়ে কনজিউমার বিজনেস গ্রুপ (বাংলাদেশ) উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশে চালু হল হুয়াওয়ে সুপার ফ্ল্যাগশিপ Mate 30 Pro
ছবি: সংগৃহীত

বেয়ন্ড ঝেং ছাড়িয়ে বলেছিলেন, “হুয়াওয়ে Mate 30 Pro এর সমৃদ্ধ বৈশিষ্ট্যগুলির কারণে ইতিমধ্যে বিশ্বব্যাপী গ্রাহকদের দ্বারা প্রশংসিত। আমরা আশা করি Mate 30 Pro স্থানীয় বাজারে আমাদের মূল্যবান গ্রাহকদের চাহিদা পূরণ করবে।”

Mate 30 Pro এর ৬.৫৩-ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস সহ OLED ‘হরিজন ডিসপ্লে’। এটি একটি ইনগ্রেশন প্রোটেকশন আইপি (ইনগ্রেশন সুরক্ষা)-৬৮-শংসিত স্মার্টফোন। ফলস্বরূপ, বালু এবং ময়লা প্রতিরোধী ফোনটি অত্যন্ত সুরক্ষিত থাকবে এবং পাঁচ ফুট জলের নিচ পর্যন্ত থাকতে পারবে।

ফোনটি এর উচ্চমানের ক্যামেরা কনফিগারেশনের জন্যও স্বীকৃত হয়েছে। হুয়াওয়ে Mate 30 Pro ডিএক্সও মার্ক র‌্যাঙ্কিংয়ে ১৩২ এর ফটো স্কোর সহ শীর্ষে। এই ফোনে ৪০-মেগাপিক্সেল সহ দুটি রিয়ার ক্যামেরা ব্যবহৃত হয়েছে। একটি হ’ল ‘সুপার-সেন্সিং’ এবং অন্যটি হল ‘সিনেমা ক্যামেরা।’ ‘সিনেমা ক্যামেরা’ এর সাহায্যে খুব কম আলোতে ভিডিও এবং ছবি ক্যাপচার করা যায়।

আল্ট্রা স্লো-মোশন এবং আল্ট্রা ওয়াইড এঙ্গেল টাইম ল্যাপস ভিডিও বৈশিষ্ট্যগুলিও উপলব্ধ। সুপার-সেন্সিং ক্যামেরা ব্যবহার করে যে কোনও রাত এবং দিনের ছবিগুলিতে একটি তীক্ষ্ণ প্রতিচ্ছবি পাওয়া যায়।

এই দুটি ক্যামেরা ছাড়াও রয়েছে একটি ৮-মেগাপিক্সেল টেলিফোটো ক্যামেরা এবং একটি 3D ডেপ্ত সেন্সর। ফোনের সামনে তিনটি ক্যামেরা রয়েছে যেমন যথাক্রমে ৩২-মেগাপিক্সেল সহ একটি ক্যামেরা, একটি 3D ডেপ্ত সেন্সর ক্যামেরা এবং একটি swing gesture ক্যামেরা।

Mate 30 Pro ফোনে EMUI 10 সফটওয়্যারে চলবে যা অ্যান্ড্রয়েড ১০ এর অপারেটিং সিস্টেমের উপর ভিত্তি করে। ফোনটি দুটি রঙে পাওয়া যাবে; বাংলাদেশে কালো ও স্পেস সিলভার এবং এটি ৮ জিবি র‍্যাম, ২৫৬ জিবি স্টোরেজ সহ।

Mate 30 Pro প্রসেসরটি সর্বশেষতম কিরিন ৯৯০ চিপসেটের সাহায্যে সজ্জিত যা ব্যবহারকারীদের দ্রুত গতি এবং নিম্নতর বিলম্বের আনন্দ উপভোগ করতে দিবে।

এই ফোনটিতে একটি শক্তিশালী ৪,৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। ৪০ ওয়াটের সুপারচার্জিং সুবিধার কারণে ফোনটি খুব অল্প সময়ের মধ্যেই চার্জ করা যাবে।

এই ফোনে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম রয়েছে তবে এটি গুগল প্লেতে প্রাক ইনস্টলড নয়। ব্যবহারকারীরা হুয়াওয়ে অ্যাপগ্যালারি থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করতে পারবেন। ইতোমধ্যে হুয়াওয়ে তাদের অ্যাপ গ্যালারী সমৃদ্ধ করতে ১০০ কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগের ঘোষণা দিয়েছে।