চীন ভিত্তিক অপো’র সাব-ব্র্যান্ড রিয়েলমি সাশ্রয়ী মূল্যের দাম অনুসরণ করে ভারতের মতো বাংলাদেশের স্মার্টফোন বাজারে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চায়। সংস্থাটি ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগযুক্ত স্মার্টফোনটি দিয়ে দেশে বাজার শুরু করেছে।

রিয়েলমি রিলিজ করেছে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগযুক্ত ফোন
ছবি: সংগৃহীত

সোমবার রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশে তাদের ফোন লঞ্চের ঘোষণা দেয় রিয়েলমি।

এই সময়ে, রিয়েলমির দক্ষিণ পূর্ব ও দক্ষিণ এশিয়ার ব্র্যান্ডিং পরিচালক, নিয়ন শি বলেছেন, রিয়েলমি অন্যান্য ব্র্যান্ডের সাথে মান বজায় রেখে প্রতিযোগিতামূলক দামে স্মার্টফোন বিক্রি করবে।

দেশে ই-কমার্সের পাশাপাশি সংস্থাটি মোবাইল অফলাইনে বিক্রয় করার পরিকল্পনা করেছে। এর মধ্যে ঢাকায় একটি ব্র্যান্ড শপ স্থাপনসহ ঢাকার বাইরে ব্যবসা সম্প্রসারণের পরিকল্পনা রয়েছে বলে তিনি জানান।

রিয়েলমি 5G এবং এআইওটি প্রযুক্তিতে আরও জোর দেওয়া হচ্ছে। নিয়ন শি আরও জানান, বৈশ্বিক বাজারের পাশাপাশি স্মার্টফোন এর পাশাপাশি হেডফোন এবং স্মার্টওয়াচগুলি বাংলাদেশে আনা হবে।

রিয়েলমি সূত্র জানিয়েছে তারা ইতিমধ্যে গাজীপুরে কারখানা স্থাপন করেছে। স্মার্টফোনগুলি তৈরি করতে সেখানে তিন সারিতে ২৫০ জনেরও বেশি কর্মী কাজ করছেন। এ ছাড়া রাজধানীর পুলিশ প্লাজায় অফিস স্থাপন করে সংস্থাটি দশ শতাধিক কর্মীর ব্যবসা শুরু করতে যাচ্ছে।

রিয়েলমি রিলিজ করেছে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগযুক্ত ফোন
ছবি: সংগৃহীত

চীন ভিত্তিক সংস্থাটি স্বাধীন ব্র্যান্ড হিসাবে ৪ মে ২০১৮ এ কার্যক্রম শুরু করেছিল। অপো থেকে আলাদা করে একটি স্বাধীন ব্র্যান্ড হিসাবে লঞ্চ করার প্রথম বছরে তারা স্মার্টফোনটির ২.৫ মিলিয়ন ইউনিট সরবরাহ করেছিল।

এই বছর, রিয়েলমি একা ভারতে ৩০০ মিলিয়ন স্মার্টফোন বিক্রি করতে চায়। রিয়েলমি বাজারের শুরু থেকেই চীনা ব্র্যান্ড ভিভো এবং অপো’র সাথে প্রতিযোগিতা করে আসছে।

মার্কেট রিসার্চ ফার্ম, ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ কর্পোরেশনের (আইডিসি) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রিয়েলমি গত বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) চতুর্থ শীর্ষস্থানীয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ডে পরিণত হয়েছে, ভারতের বাজারের ১৪.৩% দখল করেছে যেখানে শাওমি শীর্ষ স্থান অধিকার করেছে ২৭.১% নিয়ে।

কেবল ভারতের বাজারেই নয়, চীন ছাড়াও রিয়েলমি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, রাশিয়া এবং ইউরোপের ২০ শতাংশ বাজার দখল করতে পেরেছে।