আসসালামুআলাইকুম।

আজকে অনেকদিন পর WizBD-তে একটা পোস্ট নিয়ে হাজির হলাম। পোস্টটি শুরু করার আগে বলে রাখি যে এই বিষয়ে WizBD-তে এর আগেও পোস্ট হয়েছে। তবে সেখানে বিস্তারিতভাবে পুরো বিষয়টা উল্লেখ ছিলো না বিধায় আমি আজকের এই পোস্টটি লিখছি।

So, আজকের পোস্টের বিষয় হলো Android Device এর Custom ROM নিয়ে। আমরা কম-বেশি প্রায় সকলেই Android phone ব্যাবহার করে থাকি। কেননা বর্তমান বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে প্রযুক্তি এবং ইন্টারনেট ব্যাবহারের জন্য সার্বজনীন, সহজলভ্য এবং সহজে ব্যাবহারযোগ্য সেরা মাধ্যম এই Android device। তবে এটির সুবিধা আমরা ভোগ করে থাকলেও এর Build quality সম্পর্কে আমাদের অনেকেরই জানা নেই। তো আজকে আমি আপনাদের সাথে এই সম্পূর্ণ বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করব।তার আগে বলে নেই যারা এখনও আমার ওয়েবসাইটটিতে Sign up করেন নি তারা এখনই Sign up করে নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের সাথে থাকুন। এবং নতুন নতুন পোস্ট করে সাইটকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করুন।

ROM কি?

ROM বলতে সাধারণত Read-only memory-কে বোঝায়। তবে Android এর ক্ষেত্রে এটি অন্য অর্থে ব্যাবহৃত হয়। অর্থাৎ ROM বলতে Device এর একটা Storage কে বোঝায়। যেখান থেকে Data নেওয়া যায় কিন্তু Data input করা যায় না।

বিষয়টা একটু খুলে বলি…

যখন আমরা নতুন কোন Android phone বা Tablet কিনি তখন সেটি চালু করার পর একটি Screen দেখতে পাই এবং সেখানে বিভিন্ন Function, icon, UI এবং settings দেখতে পাই। মূলত সোজা কথায় এটিকেই ROM বলে। অর্থাৎ যেই Operating System দ্বারা Android device চালানো হয় তাকেই ROM বলে। Device তৈরীর সময় Developer-রা এটা install করে থাকে।

Firmware কি?

আমারা যারা Computer বা বিভিন্ন Electronic device ব্যাবহার করি তারা জানি যে কোন Device চালাতে গেলে ২ টা জিনিস দরকার হয়। প্রথমত Hardware এবং দ্বিতীয়ত Software। এবং আমরা এও জানি যে Software এবং Hardware উভয় উভয়কে ছাড়া কোন কাজ সম্পন্ন করতে পারে না।

তবে এই দুটির মধ্যে সংযোগ প্রতিস্থাপনের জন্য দরকার হয় Firmware। আমরা যারা Developer আছি তারা এটা ভালো বুঝি।

তো যারা বুঝি না তাদের একটু বুঝিয়ে বলি…

আমাদের Android phone-এ বিভিন্ন App installed থাকে। সেটা System app হোক বা User app তাকে Software বলে। যেটা দিয়ে আমরা Hardware কে বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে কোন কাজ করি। তবে আমরা কি জানি যে Hardware এর সাথে Software এর সংযোগ কে করে দিচ্ছে? এটিই হলো Firmware বা Operating system।আরও ভালোভাবে বলতে গেলে একটা উদাহারণ দেই। ধরুন আপনি আপনার ফোনের ক্যামেরা দিয়ে একটা ছবি তুলবেন। এখানে আপনার ফোনের ক্যামেরাটি হলো Hardware আর যেই App-টি দিয়ে আপনি Click করে ছবি Capture করবেন সেটি হলো Software। তবে এই ছবি তুলতে এই দুটি Process এর মাঝেও আপনার ছবি তোলার Command-টিকে আরেকটা Layer এর ভেতর দিয়ে যেতে হয়। আশা করি এবার বুঝতে পেরেছেন যে সেটা Android platform। সেটা Android হোক, Java হোক অথবা iOS, সেটা এক কথায় ROM, Firmware বা Operating system বলে।

এবার একটু গভীরে যাওয়া যাক…

Custom ROM আর Stock ROM এর মধ্যে পার্থক্য কি?

নতুন কোন Device তৈরীর সময় Developer-রা যেই Firmware install করে থাকে সেটি হলো Stock ROM বা Operating System। আর নিজেদের ব্যাবহারের সুবিধার জন্য যেই Operating System install করি সেটাকে বলে Custom ROM।

Custom ROM এর সুবিধা কি?

কোন Device release করার সময় সেটির Specification বুঝে Developer-রা Perfect stock ROM device-টিতে install করে থাকে। তবে User এর সুবিধা অনুযায়ী আমরা সেটা মর্জি মত সেটা Change করতে পারে। তবে এই সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকলে এর পরিণতি খারাপ হতে পারে। Custom ROM এর সুবিধাগুলো নিচে লেখা হলোঃ

  • 1. Better performance.
  • 2. Better UI.
  • 3. Extra Features.
  • 4. Access full device administration.
  • 5. Update OS version.

 

Custom ROM কিভাবে install করব?

Custom ROM install করার জন্য আপনার Root সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা রাখতে হবে। এক কথায় Root অর্থ Device এর পূর্ণ Administration access। আপনি ভাবছেন যে “আমার ফোন, আমি যেরকম খুশি সেরকম করে চালাতে পারি এটাই তো আমার Full administration access। আবার নতুন করে কি access পাব?” এই ধারণাটি সম্পূর্ণ ভূল প্রমাণিত হবে যখন আপনি Root সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানবেন। Root সম্পর্কে একটু বিস্তারিত না বললেই নয়। কারণ এটা না বুঝলে Custom ROM এর কিছুই বোঝা যাবে না।

বাংলা কথায় Root মানে কম্পানির ওপর হাত ঘোরানো। এখন আমি আপনাকে একটা প্রশ্ন করি, আপনি কি আপনার ফোনের Device information change করতে পারবেন? অথবা, ফোনের Stock build কোন System app uninstall করতে পারবেন? না তো? তবে Root করার পর আপনি এসব কিছুই করতে পারবেন। একেই বলে Full administration access। তবে এতে একটা সমস্যাও আছে। সমস্যাটা হলো এই যে Root করার পর আপনার ফোন কম্পানি ওই ফোনটির কোন দায়বদ্ধতা বহন করবে না। সোজা কথায় বলতে গেলে ফোনের কোন Guarantee বা Warenty থাকবে না এবং সেটি দিয়ে কোন অসামাজিক কাজ হলে কম্পানি তার জন্য দায়বদ্ধ থাকবে না। তাই Root-এ যেমন সুবিধা আছে সেরকম অসুবিধাও আছে। তাই আপনি Rooted user হলে আপনি আপনার Device-এ যাই করবেন নিজের দায়িত্বে করবেন।

আমাদের আলোচনা ছিল Android custom ROM নিয়ে। এবার আসি Custom ROM কিভাবে install করবেন…

প্রথমত আপনার Device-এ Root access থাকতে হবে। দ্বিতীয়ত আপনার ডিভাইসটিতে Custom recovery image installed থাকতে হবে। Root আপনি Kingroot, Kingoroot, ironRoot, SuperSU এসব দিয়ে খুব সহজেই করতে পারবেন। আর Recovery image আপনি আপনার Device এর নাম দিয়ে Search engine-এ খুঁজতে পারেন অথবা আপনার Device-এর Facebook group-এও খুঁজে দেখতে পারেন। বর্তমানে ব্যাবহৃত কয়েকটি ভালো Recovery image গুলির নাম নিচে দেওয়া হলোঃ

  • 1. Philz
  • 2. CTR
  • 3. TWRP



Recovery image পেয়ে গেলে সেটা Flashify বা Rashr দিয়ে Flash করুন। Recovery successfully installed হয়েছে কি না তা জানতে আপনার ফোনটির নিয়ম অনুসারে Recovery mode-এ On করুন। বেশিরভাগ ফোনে ফোন বন্ধ করে Power+Volume Up+Home button একসাথে কয়েক সেকেন্ড চেপে রাখলে Recovery mode open হয়। Recovery mode চালু হয়ে গেলেই বেশি টিপাটিপি করবেন না। প্রথমে আপনার Device এর Specification বুঝে Custom ROM খুঁজুন। মিলে গেলে ভালো। যেসব File মিলবে না সেগুলো Replace করে Port করে নিতে হবে। বর্তমানে ভালো কিছু ROM এর নাম নিচে দেওয়া হলোঃ

  • 1. CynogenMod
  • 2. Linage OS
  • 3. AOSP



এসব রম বেশি খাটুনি ছাড়াই বেশিরভাগ ডিভাইসে সাপোর্ট করে। তবে অন্য কোন ডিভাইসের রম install করতে গেলে Port করে নিতে হবে। এবার install করা যাক। নিচের Step গুলি Follow করুন।

  • ১. Battary full charged রাখবেন।
  • ২. পরবর্তীতে কোন ঝামেলা যাতে না হয় তাই ফোনের সবকিছু Backup করে External storage-এ রাখবেন।
  • ৩. আপনার Custom ROM টি অবশ্যই External Storage থেকে install করবেন।
  • ৪. Install এর আগে Internal storage recovery থেকে Format করে নিবেন।
  • ৫. সব কাজ শেষ হলে Recovery থেকে Custom ROM install দিবেন।



মনে রাখবেন, আপনার Action যদি Failed হয় তাহলে প্রথম ৩টি Step-ই হবে আপনার ফোনটি বাঁচানোর একমাত্র Lifeline। So, এই Sencetive বিষয়গুলি মাথায় রাখবেন। Custom ROM flash করা হয়ে গেলে ফোন চালু করে ROM টির সবকিছু Check করবেন। কোন সমস্যা থাকলে Developer-দের সহায়তা নিয়ে সমাধান করবেন।

জরুরি কিছু কথাঃ

আমি বড় কোন Android Developer না। তাই এই পোস্টটির মাধ্যমে আপনাদের কতটা সাহায্য করতে পারব জানি না। এই পোস্টটি শুধুমাত্র Beginner-দের জন্য। Android use করার সময় কোন সমস্যায় পড়লে যাতে তার থেকে সমাধান করতে পারেন সেই জন্যই আমার এই পোস্ট। বড় কোন Android Programming এর কোন কাজ করতে গেলে আপনাদের আরও চড়াই-উত্রাই পার করতে হবে। আমি শুধু Basic ধারণাটি দিলাম। তাই যাই করবেন নিজের দায়িত্বে করবেন। কিছু খারাপ হয়ে গেলে আমি বা WizBD কোনভাবে দায়ী থাকবে না।

আসলে আমিও ঠিক এমনভাবেই ইন্টারনেটে Custom ROM সম্পর্কে জেনে এটা install করতে গিয়ে ২টা ফোন নষ্ট করেছি। তারপর ভাবলাম যে এটা ভালোভাবে শিখি তাই একজন Android developer এর থেকে এই বিষয়ে বিস্তারিত জানলাম। তারপর এটা নিয়ে ঘাটাঘাটি করে সব বুঝলাম। তাই আপনারাও যাই করবেন সাবধানে করবেন।

So guys, আর কথা বাড়াতে চাচ্ছি না। এমনিতেও আপনাদের বোঝানোর স্বার্থে পোস্টটা অনেক বড় হয়ে গেল। আর এই পোস্টটি আমার নিজের লেখা তাই কপি করলে Credit দিবেন। আশা করি পোস্টটি আপনাদের উপকারে আসবে।